অতিরিক্ত মোবাইল ফোন ব্যবহারে যেসব সমস্যা হয়

হ্যালো আপনাকে বলছি, সারাদিন নিশ্চয়ই মোবাইল ফোনের স্ক্রিনে বেশিরভাগ সময় কাটাচ্ছেন হোক দরকারে কিংবা অবসরে স্মার্ট ফোন ছাড়া যখন চলছে না একটি মুহূর্ত তখন এই ফোনের ব্যবহারে বাড়াচ্ছে আমাদের স্বাস্থ্য ঝুকি। সাথে ব্যক্তি জীবনে নানা সমস্যা। অতিরিক্ত মোবাইল ফোন ব্যবহারে কি ধরনের অসভ্যতার সম্মুখীন হচ্ছে আমরা জানাব তা।

হাতের মুঠোয় এখন গোটা দুনিয়া প্রযুক্তির উৎকর্ষায় জীবন হয়েছে সহজ তর কিন্তু পাল্লা দিয়ে বেড়েছে নানা শারীরিক অসুস্থতা এজন্যই মোবাইল ফোন ব্যবহারের ক্ষেত্রে হতে হবে সচেতন।

অতিরিক্ত মোবাইল ফোন ব্যবহারে হতে পারে কানের সমস্যা। ইনারিয়ার ড্যামেজ কিংবা কক্রিয়ারের মত রোগ। এছাড়াও একটানা অনেকক্ষণ কথা বলার অভ্যাস যাদের তারা ভুকতে পারেন হেয়ারিং লস সমস্যায়।

অনেকক্ষণ মোবাইল স্ক্রিনে টানা তাকিয়ে থাকলে দেখা দিতে পারে ভিশন সিনড্রোম রোগ। এর পাশাপাশি চোখ লাল হওয়া, জ্বালাপোড়া ভাব, আইষ্ট্রোন, ড্রাই আই, আই ইরিটেশন, ঝাপঝা দৃষ্টি এমন কি হতে পারে রাতকানা রোগ।
মোবাইল ফোন ব্যবহারের মাধ্যমে হতে পারে মাথার যন্ত্রণাও। মাথা ঘুরা বা ব্রেন টিউমারও।

তাই শিশুদের কাছ থেকে মোবাইল ফোন দূরে রাখাই ভালো। দৈনন্দিন জীবনযাপনে মাত্রাতিরিক্ত মোবাইল ফোন ব্যবহারের ফলে হতে পারে মানসিক সমস্যা। কমে যেতে পারে মস্তিষ্কে গ্লুকোজ ধারণ ক্ষমতা। ফলে স্পেটিয়াল ওয়ার্কিং মেমোরি ব্যাহত হয়।

এছাড়াও মোবাইল ফোনের অতিরিক্ত ব্যবহার থেকে ঘাড়ের যন্ত্রণা পিঠ ও কোমরে ব্যথা কিংবা হৃদপিন্ডের গতি অস্বাভাবিকভাবে বেড়ে যেতে পারে।

বিশেষজ্ঞদের মতে মোবাইল ফোন স্পিকার অন করে একটু দূর থেকে কথা বলার অভ্যাস করতে পারলে ভালো। খুব প্রয়োজন ছাড়া মোবাইল স্ক্রিনে চোখ রাখা থেকে থাকতে হবে দূরে।

Leave a Comment