ক্রিকেট নাকি রাজনীতি করবেন সাকিব | cricket or politics

অপরারেশন্স চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস গত মঙ্গলবার বিসিবির ক্রিকেটকে জানিয়েছিলেন, তিনটি ফরম্যাটেই বাংলাদেশের ক্রিকেট অধিনায়ক এখনও সাকিব আল হাসান। এরপর নিজের অধিনায়কত্ব নিয়ে গতকাল এক অনুষ্ঠানে মুখ খুলেন সাকির আল হাসান আর সেখানে তার কথায় রসহ্যভরা ছিল।

বিশ্বকাপের উদ্দেশে রওনা হওয়ার আগে সাকিব আল হাসান জানান যে, ক্রিকেট নাকি রাজনীতি করবেন সাকিব, আসর শেষে তিনি আর অধিনায়কত্ব করবেন না। কিন্তু এখনো বিসিবিকে কিছু বলেননি তিনি আনুষ্ঠানিকভাবে । আর সে কারণেই এখনও বিসিবি বলছে সব ফরম্যাটের অধিনায়ক সাকিব।

সাকিব বলেন, বর্তমান সিরিজের পরেই আমাদের নির্বাচন শেষ হবে আর নির্বাচন শেষে করেই আমরা কোনো সিদ্ধান্তে যেতে চাচ্ছি। কীভাবে দেশের ক্রিকেটকে এগিয়ে নেয়া যায়। সবাই মিলে যেটা ভালো মনে হয় সেটাই করবো আমরা। যদি মনে হয় যে আমার আরও কিছুদিন কন্টিনিউ করা উচিত তাহলে সেটাই করবো।

আর যদি মনে হয়, লিটন-শান্ত-মিরাজ ওদের মধ্যে সম্ভাবনা আছে ভালো কিছু করার। ওরা আরও এনার্জেটিক এবং বেশি ইয়াং তাই খারাপ হওয়ার কোনো কারণ আমি দেখি না।

সাকিবের অধিনায়কত্ব নিয়ে জালাল বলেছিলেন, অবশ্যই এটা আনন্দের ব্যাপার, মিডিয়াতে তার স্টেটমেন্টটা আমি দেখেছি। এখন সে দেশের ক্রিকেটের ওপর বেশি ফোকাস করাটাই ভালো হবে বাইরের ক্রিকেট থেকে। আমি মনে করি এটা আমাদের জন্য এবং আমাদের দেশের জন্য বড় একটা স্বস্তিদায়ক খবর। আমরা চাই সাকিব আমাদের এখানে যতগুলো ফরম্যাট আছে, সে যাতে আমাদের দেশের জন্য খেলে এটাই আমরা কামনা করি।

এই কর্মকর্তা আরো বলেছিলেন, সাকিবকেই লম্বা সময়ের জন্য নেতৃত্বে পাওয়ার ইচ্ছা পোষণ করে বিসিবির। স্টিল সে আমাদের অধিনায়ক। এখন আমরা শান্তকে অধিনায়কত্বটা দিয়েছি। শান্তকে বিসিবি বলেছে যে সামনে দুইটা সিরিজ আছে নিউজিল্যান্ডের সঙ্গে, যার জন্য তাকে আমরা অধিনায়কত্ব দিয়েছি। দেশের ক্রিকেট ভক্তরা জানে যে, সাকিবকে একটা লম্বা সময়ের জন্যই অধিনায়ক দেওয়া হয়েছে। সব ফরম্যাটেই সে আমাদের অধিনায়ক। সামনেও সে সব ফরম্যাটেই অধিনায়ক থাকবে কি না এরকম প্রশ্ন কিন্তু এখনও উঠেনি। আমরা ও ক্রিকেট ভক্তরা চাই সেই অধিনায়ক থাকুক।

Leave a Comment